শিশু অন্ধত্ব (Child blindness) এবং প্রতিরোধের উপায়সমূহ


শিশু অন্ধত্বের (Child blindness) কারণগুলোর মধ্যে চোখে ছানি পড়া, ভিটামিন এ’র অভাবে কর্ণিয়া নষ্ট হওয়া, হাম ও মারাত্মক ডায়রিয়া, এফাকিয়া অথবা এমরাইওপিয়া অন্যতম। এছাড়াও অন্যান্য যেমন, অফথালমিয়া নিওনেটারাম , চোখের আঘাত ইত্যাদি কারনেও শিশুর অন্ধত্ব সমস্যা হতে পারে।


শিশু অন্ধত্ব (Child blindness) প্রতিরোধের উপায়

সঠিক সময়ের পদক্ষেপ গ্রহণে শিশুর অন্ধত্বের হার অনেক কমিয়ে আনা সম্ভব, আর এজন্য প্রয়োজন সচেতনতা।

  • শিশু জন্মের পরই শিশুর চোখ পরিষ্কার করতে হবে এবং শিশুর চোখে কোন ময়লা বা পুঁজ দেখালে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
  • প্রসবের পর মাকে ভিটামিন এ খাওয়ানো।
  • জন্মের পর পরই শিশুকে শাল দুধ খাওয়ানো এবং ৬ মাস পর্যন্ত শুধু বুকের দুধ খাওয়া…
  • জন্মের ১ বছরের মধ্যে হামের টিকা সহ সব কয়টি টিকা দিতে হবে।
  • ৫ (পাঁচ) বছরের নিচের শিশুদের হাম, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া এবং অপুষ্টিজনিত অবস্থায় ভিটামিন এ খাওয়াতে হবে। ছয়মাস বয়স থেকে ছয় মাস অন্তর অন্তর ১টা করে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসূল খাওয়াতে হবে।
  • শিশু ঠিক মত দেখতে না পেলে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া
  • শিশুর চোখের মনি সাদা হলে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া
  • চোখ ট্যারা হলে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
  • চোখে কখনই গাছ-গাছালি বা কবিরাজী ঔষধ না দেওয়া।
  • শিশুকে স্কুলে ভর্তির পূর্বে চোখ পরীক্ষা করতে হবে।
  • শিশুর চোখে আঘাত লাগলে সংগে সংগে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া।

বিনামূল্যে ভিটামিন ক্যাপসূল খাওয়ানোর জন্য কোথায় যোগাযোগ করবেন?

শিশু ৯ মাস থেকে ৫৯ মাসের মধ্যে হলে ও প্রসূতি মায়েদের বিনামূল্যে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসূল খাওয়ানোর জন্য নিম্নলিখিত ঠিকানায় যোগোযোগ করতে পারেন:

  • নিকটস্থ টিকাদান কেন্দ্র
  • স্বাস্থ্যকেন্দ্র, উপজেলা ও জেলা হাসপাতাল
  • মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
  • জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান, মহাখালী,ঢাকা
  • সম্প্রসারিত টিকাদান কেন্দ্র, মহাখালী,ঢাকা
জানতে চাই  কিভাবে নবজাতকের যত্ন করবেন?

শিশু অন্ধত্ব প্রতিরোধের জন্য শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ সমৃদ্ধ খাবার যেমন: হলুদ ফলমূল, সবুজ শাকসব্জী, ডিমের কুসুম, ছোটমাছ-মলা, ঢেলা এবং নিয়মিত ভিটামিন ‘এ’ খাওয়াতে হবে। ছয়মাস বয়স হতে ছয় মাস পর পর ১টা করে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। ডায়রিয়া ও হামে আক্রান্ত শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ খাওয়াতে হবে। শিশুদের চোখ ভাল রাখতে হলে জন্মের পরপরই শাল দুধ এবং ছয় মাস শুধু মায়ের দুধ এবং মাকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। চোখে কখনোই গাছ-গাছালী বা কবিরাজী ঔষধ দেয়া যাবে না। শিশুকে চক্ষু চিকিৎসকের কাছে নিয়ে চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে হবে।