স্বাস্থ্যবান সুন্দর চুল শুধু আমাদের সৌন্দর্যই বৃদ্ধি করে না, আমাদের ব্যক্তিত্বের ওপরেও প্রভাব ফেলে। সকলের জন্যই চুল এর সৌন্দর্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সবার চুল একরকম নয়, তাই চুলের ধরন অনুযায়ী যত্ন নেবার ধরণও থাকে ভিন্ন। কিন্তু চুলের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সকলকেই এই সহজ ৫ টি নিয়ম মেনে চলা প্রয়োজন। আপনি পাবেন স্বাস্থ্যবান ও ঝলমলে চুল।

চুলের গোঁড়ায় অয়েল ম্যাসেজ করবেন
সপ্তাহে অন্তত ২-৩ বার গরম অয়েল ম্যাসেজ করতে পারেন। চুলের গোঁড়ার ময়েশ্চার বজায় রাখতে এটি খুব কার্যকর। নারকেল তেল,অলেভ অয়েল, আমন্ড অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। আঙুলের ডগা দিয়ে চুলের গোঁড়ায় বেশ ভালো ভাবে ম্যাসেজ করবেন। শ্যাম্পু করার ১ ঘণ্টাখানেক আগে চুলের গোঁড়ায় অয়েল ম্যাসেজ করবেন। আপনি চুলের গোঁড়ায় ম্যাসেজ করার কারণে আরামও পাবেন এবং ঘুমও ভাল হবে। চুল ঘন করতে চাইলে সরিষার তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

খাওয়া-দাওয়া
সুন্দর চুলের জন্য প্রথমেই নজর দিবেন খাবারের দিকে। স্বাস্থ্যবান চুলের জন্য সবুজ সবজি ও ফলের রস তো অতি জরুরি এর সাথে দুধ, ফ্রেশ দই, নারকেল, সালাদ ও ফলের ওপর বা ভাতে নারকেল কুরানো খেতে পারেন। রিফাইন্ড, প্রসেসড ও ক্যানড ফুড কম পরিমানে খান।

প্রাকৃতিক পণ্য ব্যাবহার করুণ
চুলের যত্নে কখনোই কড়া কেমিক্যাল ব্যবহার করবেন না। প্রাকৃতিক উপায়ে চুলের যত্ন করতে পারলে বেশ ভালো হয়। সপ্তাহে অন্তত ৩ বার শ্যাম্পু করার প্রয়োজন হলে ন্যাচারাল ক্লেনজার, কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। নিয়মিত চুলে নারকেল তেল ম্যাসেজ করবেন।

জানতে চাই  খুশকি সমস্যায় ভুগছেন?

রিলেক্স থাকার চেষ্টা করুণ
চুলের রং ও স্বাস্থ্যের জন্য স্ট্রেস ক্ষতিকারক। তাই স্ট্রেসমুক্ত থাকতে রিলেক্স করার নানা ধরনের টেকনিক অনুসরণ করতে পারেন। যেমন- মেডিটেশন, মিউজিক থেরাপি ট্রাই করতে পারেন।

ভেজা চুলে মাথা আঁচড়াবেন না
চুল ভিজে খাকলে কখনোই আঁচড়াবেন না। চুলের জট ছাড়ানোর জন্য বড় দাঁড়ার ব্রাশ ব্যবহার করবেন। কাঠের চিরুনি ব্যবহার চুলের জন্য স্বাস্থ্যকর। সপ্তাহে অন্তত ১বার ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট ট্রাই করুন।