আমরা মুখের যত্ন নিয়ে চিন্তিত থাকলেও শরীরের অন্য অঙ্গগুলোর দিকে মনযোগ দেইনা। কুচকুচে কালো কনুই বা ফাটা গোড়ালি আপনার সকল সৌন্দর্য এক মুহূর্তে ম্লান করে দিতে পারে। শরীরের এইসব অবহেলিত অঙ্গগুলোর যেমন হাঁটু ও গোড়ালির যত্ন, কনুইয়ের কালো দাগ সম্পর্কে সচেতন হোন।

কনুই ও হাঁটু
শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় কনুই ও হাঁটুর অংশের ত্বক প্রায়ই শুষ্ক , খসখসে ও কাল দেখা যায় । তাই কনুই ও হাঁটুর দরকার বিশেষ যত্ন।

  • নিয়মিত ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খা্বেন যেমনঃ আমড়া, লেবু, তেতুল, কাচামরিচ।
  • রুটিন করে স্ক্রাব দিয়ে হাঁটু ও কনুই পরিষ্কার করবেন।
  • লেবুর রস হাঁটু ও কনুইর ত্বক পরিষ্কার রাখার জন্য দারুন। লেবুর রসের সংগে সামান্য লবন মিশিয়ে হাঁটু ও কনুইতে ঘষবেন। এতে আপনার ভীষণ উপকার হবে।
  • অলিভ অয়েল,নারিকেল তেল বা আমন্ড অয়েল দিয়ে কনুই ও হাঁটুতে ম্যাসাজ করবেন।

গোড়ালির যত্ন

  • একটি গামলাতে হালকা গরম পানি নিবেন, তাতে লিকুইড সাবান মিশিয়ে তার ভেতর পা কিছু সময় ডুবিয়ে রাখবেন। কিছু সময় ডুবিয়ে রাখলে গোড়ালির ত্বক নরম হলে ফুট স্ক্রাবার দিয়ে পায়ের গোড়ালি ভাল করে ঘষে নিবেন। মসৃণ ও সুন্দর পায়ের গোড়ালি সবার নজর কাড়ে।
  • রাতে ঘুমাতে যাবার আগে পায়ের গোড়ালিতে ভ্যাসলিন লাগিয়ে কিছু সময় ম্যাসাজ করবেন। গোড়ালির জন্য বিশেষ ক্রিম ও পাওয়া যায়, সেটাও ব্যবহার করতে পারেন।
    ইলাস্টিক ঢিলা পরিষ্কার সুতির মোজা পরে ঘুমাতে যাবেন। খুব বেশি টাইট মোজা পড়বেন না, যেসব মোজার ইলাস্টিক ঢিলা হয়ে গেছে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন।
  • মসৃণ ও সুন্দর পায়ের গোড়ালি জন্য নিয়মিত গ্লিসারিন ও গোলাপ জলের একত্রে মিশ্রণ করে পায়ের গোড়ালিতে লাগান উপকার পাবেন।
  • ফাটা গোড়ালির সমস্যা দূর করতে ১ সপ্তাহের ট্রিটমেন্ট মেনে চলুন। গোড়ালি যদি বেশি ফেটে রক্ত বের হয় তাহলে দেরী না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ।

জানতে চাই  গ্রীষ্মে পায়ের যত্ন করার সহজ কিছু টিপস্‌