জীবনের প্রায় ১/৩ সময় আমরা ঘুমিয়ে কাটাই। বিশ্রাম নেয়ার সময় আমাদের শোবার জায়গা বা ঘরটা কেমন, আমাদের শরীর ও মন কতটা সংবেদনশীল থাকে, তার ওপর আমাদের সুনিদ্রার বিষয়টা নির্ভর করে। আমাদের ঘরের ভেতরের সার্বিক পরিবেশ ও নকশা যতটা সুন্দর হবে, রাতের অপরিহার্য বিশ্রামও তত ভালো হবে। বিশ্বের প্রায় ৪৫% মানুষ অনিদ্রায় ভোগে, যাদের সংখ্যা প্রায় ৩১৫ কোটি।

অনিদ্রা দূর করার উপায়
ঘুমের আগে আমাদের শরীর ও মন কতটা সংবেদনশীল থাকে, তার ওপর অনেকটা অনিদ্রার বিষয়টা নির্ভর করে।

যুক্তরাজ্যে এক গবেষণায় দেখা হয়েছে ঘুমের ১ঘণ্টা আগে মানুষ কী নিয়ে ব্যস্ত থাকে:

  • ৬৮% টিভি দেখে
  • ৪৩% চা-কফি পান করে
  • ৫৭% কম্পিউটার বা ট্যাব ব্যবহার করে
  • ৪২% বই পড়ে
  • ৪% যোগব্যায়াম করে
  • ২১% গান শোনে

ঘরের আসবাব কীভাবে সাজাবেন
আপনার শরীর ও মনের আরামের উপযোগী আসবাবপত্র দিয়েই আপনার শয়নকক্ষ সাজাতে হবে। রাতে আপনার সুনিদ্রার জন্য কয়েকটি পরামর্শ নিম্নরুপঃ

  • ঘরে সিলিং ফ্যান ব্যবহার করবেন। আপনার ঘুমের জন্য শোবার ঘরের আদর্শ তাপমাত্রা হচ্ছে ১৮-২১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
  • শয়নকক্ষে আলোর প্রবাহ বন্ধ করতে মোটা, ভারী ও কালো পর্দা ব্যবহার করবেন।
  • ঘরে বাতাস চলাচলের জন্য একটা জানালা একটু হলেও খোলা রাখুন।
  • আপনার ঘরে শব্দ থেকে রেহাই পেতে বালিশ ও কম্বল ব্যবহার করবেন।
  • আপনার শয়নকক্ষে নিজের পছন্দ মতো কোনো গাছ বা উদ্ভিদ রাখতে পারেন।
  • আপনার শয়নকক্ষে প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলির ছবি বা শিল্পকর্ম রাখবেন।
  • আপনার আসবাব ও ড্রয়ারগুলো গুছিয়ে পরিপাটি রাখবেন।
  • আপনার শয়নকক্ষে টিভি রাখবেন না এবং টিভির পরিবর্তে সুন্দর কিছু রাখুন।

অনিদ্রার প্রতিকার

  • আপনার শোবার ঘরে কম্পিউটার, টিভি ও কাজকর্মের উপকরণ রাখবেন না।
  • আরামদায়ক ঘুমের জন্য বড় ও প্রশস্ত বিছানা ব্যবহার করবেন।
  • বিছানাটা শুধু আপনার ঘুমের জন্য। পোষা প্রাণীদেরও আপনার শয়নকক্ষের বাইরে রাখতে হবে।
  • বিছানার চাদর ও তোশক মেঝেতে না লেগে থাকে।
  • আপনার খাটের নিচ পরিষ্কার রাখবেন। বিছানার নিচে কোনো জিনিস রাখলে পোকামাকড়ের উপদ্রব সৃষ্টি হয়।
  • আর অন্তত এক ঘণ্টা আগে টিভি, কম্পিউটারের কাজ শেষ করতে হবে
  • ভালো ঘুমের জন্য আপনার শয়নকক্ষে কার্পেট, অ্যালার্মঘড়ি, আলো, অস্বস্তিকর কম্বল বর্জন করুন।
  • ঘুমাতে হবে একদম অন্ধকারে।